ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কোথায় কোন প্রযুক্তি ব্যবহার করবেন?

Corporate Networking Solution (কর্পোরেট নেটওয়ার্ক সল্যুশন): লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক (LAN) ও ওয়াইফাই সিস্টেমের মাধ্যমে অফিসের ডিজিটাল যোগাযোগ ব্যাবস্থার ভিত্তিপ্রস্তুর ইস্থাপন করুন।

ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (VPN) ও ডাটা কানেক্টিভিটি এর মাধ্যমে রিমোট অথবা ব্রাঞ্চ অফিসের সাথে আন্ত অফিসিয়াল যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত করুন। ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির মাধ্যমে বহির বিশ্বের সাথে যোগাযোগ ইস্থাপন করুন।

IT Help Desk (আইটি হেল্প ডেস্ক): অফিসিয়াল অভ্যন্তরীন কাজের জন্য ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, প্রিন্টার সেটাপ করা এবং প্রয়োজন-মাফিক ট্রাবলশ্যুটিং করা। আইটি প্রোডাক্ট এবং সার্ভিসের সিডিউল মেইনটেনেন্স করা। সাথে সাথে প্রযুক্তিগত তথ্যের সহযোগিতা করাও IT Help Desk এর কাজ।

Corporate Mail Solution (কর্পোরেট মেইল সল্যুশন): কর্পোরেট মেইল সল্যুশন দিয়ে কোম্পানির যোগাযোগ সম্পূর্ণ করে তথ্য মালিকানা, তথ্য নিরাপত্তা ও তথ্য প্রবাহের নজরদারি নিশ্চিত করুন। গ্রাহক আস্থাশীলতা, ব্যাবসায়িক পেশাদারিত্ব, প্রতিষ্ঠানের সুনাম এবং সম্ভাবনা বৃদ্ধি করুন।

Cloud Storage & Central Data Backup Solution (ক্লাউড স্টোরেজ ও সেন্ট্রাল ডাটা ব্যাকআপ সল্যুশন): গুগল ড্রাইভ বা ড্রপবক্স এর মতো নিজেস্ব লোকাল ক্লাউড সার্ভার সেটাপ করে আপনার ব্যাবসায়িক ডাটা বা তথ্যের নিরাপত্তা, ডেটা এভেইল্যাবিলিটি, ডেটা ওয়ানারশিপ বা মালিকানা, লোকাল এরিয়া নেটওর্ক এবং ওয়াইড এরিয়া নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে রিমোট ডাটা এক্সেস নিশ্চিত করুন।

ডেস্কটপ সিঙ্ক ইনস্টল করে সেন্ট্রাল সার্ভারে অফিসিয়াল তথ্যের সংরক্ষণ করুন বা ব্যাকআপ রাখুন। ব্যাবহারকারির হার্ডডিস্ক ক্র্যাশ বা একসিডেন্টাল অথবা ইন্টেনশনাল ডাটা ডিলিটের মতো দুর্ঘটনা থেকে প্রাতিষ্ঠানিক ডিজিটাল তথ্য সমূহকে নিরাপদ রাখুন।

Website Design & Development (ওয়েবসাইট ডিসাইন & ডেভেলপমেন্ট): ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পণ্য প্রদর্শন করে জাতীয় ও আন্তজাতিক ভাবে অনলাইন বিজনেস দ্বার উন্মুক্ত করুন।

Digital Marketing (ডিজিটাল মার্কেটিং): Search Engine Optimization (SEO) & Social Media Marketing (SMM) এর মাধমে আপনার পণ্য ও সেবা সম্পর্কে মানুষকে ব্যাপক ভাবে অবহিত করুন; সেবা ও পণ্য বিক্রয়ে সম্ভাবনার নতুন দিগন্ত উন্মোচন করুন।

Software Solution – Business automation or ERP Solution (সফটওয়্যার সলিউশন – বিজনেস অটোমেশন এবং এরপি সলিউশন): ব্যাবসায়ের হিসাব অনলাইনে এমনকি মোবাইল এপপ্স দিয়ে সম্পূর্ণ করুন। সফটওয়্যার এর মাধ্যমে সংরক্ষিত কোম্পানির তথ্য ও উপাত্ত থেকে প্রয়োজন-মাফিক আপ-টু-ডেট রিপোর্ট সংগ্রহ করুন।

 

কর্পোরেট মেইল ব্যবহারের সুবিধা সমূহ

Customer Trust & Professionalism ( গ্রাহক আস্তাশীলতা এবং ব্যাবসায়িক পেশাদারিত্ব)

  • কোম্পানি মেইল ব্যবহার করে কাস্টমারের সাথে যোগাযোগ সম্পূর্ণ করায় নতুন গ্রাহকদের মধ্যে আস্তাশীলতার ভাবমূর্তি তৈরি হওয়া।
  • মেইল যোগাযোগে গ্রাহক আশা করে @ সাইন এর পর ব্যাবসায়িক ডোমেইন (Business.com) নেম দেখতে। এতে এটা প্রতীয়মান হতে সহয়তা করে যে আপনি একজন পেশাদার এবংপ্রতিষ্ঠিত ব্যবসা পরিচালক।

Ownership & Privacy Control ( তথ্য মালিকানা এবং যোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ)

  • যদি আপনার প্রতিষ্ঠানে একাধিক কর্মকর্তা বা কর্মচারী থাকে, তবে আপনি চাইবেন তাদের দায়িত্বঅনুরূপ মেইল এড্রেস বন্টন করতে; সেক্ষেত্রে একটি কাস্টম ডোমেইন মেইল এড্রেস বন্টন এর মাধ্যমে ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সক্ষমতা প্রদান করবে।
  • উপরস্থ, যদি একজন কর্মকর্তা/কর্মচারী কোম্পানি ত্যাগ বা পরিবর্তন করে তবে তারা কোম্পানির মেইল এড্রেস সাথে নিয়ে যেতে সমর্থ হবে না যা দিয়ে ব্যাবসায়িক যোগাযোগ সম্পূর্ণ করে আসছিলো। এটা ব্যাবসায়িক যোগাযোগের ধারাবাহিকতা নিশ্চিত করে এবং তারা চলে গেলেও তাদের যোগাযোগকৃত ব্যাবসায়িক কন্টাক্ট এবং তথ্য আপনার কাছে থাকবে।

Name Recognition & Branding ( ব্যাবসায়িক পরিচিতি বৃদ্ধি এবং ব্র্যান্ডিং)

  • নিজেস্ব ডোমেইন মেইল ব্যবহার করা কোম্পানি প্রমোট করার একটি সহজ উপায়। যত বেশি তারা আপনার নাম দেখবে, ততো বেশি তারা আপনার কথা চিন্তা করবে এবং তাদের পক্ষে আপনাকে স্মরণ রাখা সহজ হবে।
  • মেইল যোগাযোগে আপনার নাম ব্যবহার করা ব্যাবসায়িক সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। আপনি একটি মেইল পাঠানোর পরে এটা একাধিক ভিন্ন মেইল এড্ড্রেসে ফরওয়ার্ড হতে পারে। যখন লোকজন আপনার কোম্পানির এটি তাদের মধ্যে আপনার ব্যবসা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরী করতে পারে। যদি একই ডোমেইন নেমে আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকে, এমনকি লোকজন আপনার মেইল দেখে ওয়েবসাইটও ভিজিট করতে পারে।

Safeguarding Confidential Information & Secure Data ( ইস্পর্শকাতর তথ্য নিরাপদিকরন এবং ডাটা নিরাপত্তা নিয়ন্তিকরণ)

  • মেইল যোগাযোগে ইস্পর্শকাতর তথ্য আদান প্রদান হতে পারে যেমন অর্থনৈতিক, লিগ্যাল, পাসওয়ার্ড, বা গোপনীয় তথ্য। এমপ্লয়ী মেইল একাউন্ট সম্পূর্ণ নিরাপদিকরন এবং নিয়ন্ত্রণ ব্যাতিরেকে প্রতিষ্ঠান ওই সব মেইল একাউন্ট থেকে তথ্যের পুরোমাত্রার গোপনীতা এবং নিরাপত্তা আশা করতে পারে না।
  • অর্গানাইজেশানাল ডাটা ব্যাকআপ সিস্টেম, ডাটা ইনস্ক্রিপশন, ভাইরাস ইস্পাম প্রতিরোধ – এসবদিক বিবেচনায় আন্তর্জাতিক মানসম্পর্ণ বিজনেস মেইল বেশি নিরাপদ।

 

কর্পোরেট মেইল ব্যবস্থার আদর্শ ও উচ্চমান সম্পূর্ণ বৈশিষ্ট

বিজনেস মেইলের আদর্শ কিছু বৈশিষ্ট :-

বিজনেস মেইলের আদর্শ কিছু বৈশিষ্ট

  • নিরাপত্তা: ওয়েবমেইল ও এপ্প উভয় ক্ষেত্রে লগইন করতে ২ স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা (পাসওয়ার্ড ও মোবাইল ভেরিফিকেশন কোড)
  • সিনক্রোনিজশ্ণ: মেইল (পেরিত/আগত) কন্টাক্ট (বেক্তিগত, অর্গানিজশন, ও ক্যাশ এড্রেস) ও ক্যালেন্ডারের তথ্য সমূহ ওয়েবমেইল, আউটলুক, এবং মোবাইল সিনক্রোনিজশ্ণ এর মাধ্যমে হুবহু একই রকম রাখুন।
  • ক্লাউড ডাটা স্টোরেজ: সমস্ত মেইল এবং কম্পিউটার ডাটা ক্লাউডে সংরক্ষিত রাখুন। ডেস্কটপ সিঙ্ক দিয়ে তথ্য স্বয়ংক্রিয় ভাবে অনলাইনে সিঙ্ক করুন। দুর্ঘটনা থেকে তথ্য নিরাপদ রাখুন। যখন ও যেকোনো জায়গা থেকে ব্যবহার করুন। প্রয়োজনে সহকর্মী এবং কাস্টমারের সাথে নিরাপদ ভাবে তথ্য শেয়ার করুন।
  • অনুসন্ধান ব্যবস্থা: বেসিক এবং অ্যাডভান্স অনুসন্ধানের মাধ্যমে ওয়েব ও এপ্প থেকে মেইল ও তথ্য খুঁজে বের করুন।

বিজনেস মেইলের উচ্চমান সম্পূর্ণ কিছু বৈশিষ্ট:-

বিজনেস মেইলের উচ্চমান সম্পূর্ণ কিছু বৈশিষ্ট

  • অধীনস্তদের আগত ও প্রেরিত মেইল সংরক্ষণ/মনিটরিং
  • অফিস আউটলুকে মেইল ব্যবহার
  • প্রতিষ্ঠানে আগত ও প্রেরিত মেইলের লগ পর্যবেক্ষণ
  • প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট নেটওয়ার্কের মধ্যে মেইল ব্যবহার করা
  • নিজ বা নির্দিষ্ট কিছু প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মেইল আদান প্রদান নিশ্চিত করা।
  • এটাচ্মেন্ট ব্যবহার করতে না পাড়ার সীমাবদ্ধতা প্রদান।
  • মেইল এক্সপোর্ট/ ইম্পোর্ট, ফরওয়ার্ড এক্সেস এ রেজিস্ট্রেশন প্রদান।
  • অ্যাডমিন এপ্প সহ ব্যাপক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা।