SEO কি? এবং কার্যকরী ১৫ টি SEO টিপস

এসইও কি?

প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক এসইও (SEO) শব্দের পূর্ণরূপ কি? SEO শব্দের পূর্ণরূপ হলো ‍Search Engine Optimization. আমরা প্রয়োজনীয় যে কোনো তথ্য কিংবা সংবাদ খুঁজে পেতে গুগলে সার্চ করে থাকি। গুগল তখন আমাদের সার্চ অনুযায়ী রেজাল্ট পেজে অনেকগুলো সাইটের ফলাফল প্রদর্শন করে থাকে। সার্চ রেজাল্ট পেজ কোনটি একদম প্রথমে প্রদর্শন করে আবার কোনটি সিরিয়াল অনুযায়ী একদম শেষে প্রদর্শন করে। যেই পেজটি প্রথমে দেখা যাচ্ছে সেটি প্রথমে দেখাচ্ছে কারন সেটিকে এসইও করা হয়েছে। সহজ কোথায় বলতে গেলে এসইও হলো কোন ওয়েবসাইটকে সার্চের প্রথমে প্রদর্শন করার জন্য যে প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়, সেটিকে এসইও বলে।

এসইও করার সুবিধা:-

আমাদের ব্যাবহৃত ওয়েবসাইটের ধরণ যেমনি হোক না কোনো সকলের উদেশ্য কিন্তু একটাই। আর সেটা হলো আমাদের ব্যাবহৃত ওয়েবসাইটের ভিজিটর বৃদ্ধি করা। কেননা শুধুমাত্র ভিজিটর বৃদ্ধি পেলেই ওয়েবসাইট তৈরি করার উদ্ধেশ্য সফল হবে। আর এটি হল এসইওর ফযিলত।

কার্যকরী ১৫ টি এসইও টিপস:-

১। অবশ্যই প্রতিটি পেজের টাইটেল ইউনিক এবং কীওয়ার্ড যুক্ত হতে হবে।

২। সিঙ্গেল কীওয়ার্ডের চেয়ে বেশি সার্চ ফ্রেজের দিকে গুরুত্ব দিন। long tail keyword কে ভ্যালু দিন।

৩। ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা ওয়েবসাইট তৈরি করা হলে Yoast প্লাগিন ব্যবহার করুন। কারণ Yoast প্লাগিন এসইওর জন্য অনেক কার্যকরী।

৪। ওয়েবসাইটে ফ্রেম, ফ্ল্যাশ এবং AJAX ব্যবহারে বিরত থাকুন। এগুলো গুগল পছন্দ করে না কারণ লোডিং স্পীড কমিয়ে দেয়।

৫। লিঙ্ক বিল্ডিং এর ক্ষেত্রে পরিমানের চেয়ে মানের দিকে বেশি গুরুত্ব দিন। নিন্ম মানের সাইটে লিঙ্ক না করে ভালো মানের সাইটে লিঙ্ক তৈরি করুন।

৬। কীওয়ার্ড স্টাফিং না করে কীওয়ার্ড কে ন্যাচারাল ভাবে ব্যবহার করুন। নতুনরা এই ভুলটি বেশি করে। আর্টিকেল এর মধ্যে ০.৮% এর বেশি কীওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না।

৭। ওয়েবসাইট যেন ইউজার ফ্রেন্ডলী হয়। ভিজিটর যেন সহজে আপনার ওয়েবসাইটকে ব্যবহার করে তার কাঙ্ক্ষিত তথ্য পেতে পারে সেই দিকে লক্ষ্য রাখুন।

৮। নিশ নির্ভর .edu সাইট গুলোতে লিঙ্ক বিল্ডিং করার চেষ্টা করুন। গুগল এই সাইটের লিঙ্ককে বেশি গুরুত্ব দেয়।

৯। কন্টেন্টের পরে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ন হল লিঙ্ক। তাই লিঙ্ক তৈরির ক্ষেত্রে সতর্ক ভাবে কার্যকরী লিঙ্কই তৈরি করুন। বিভিন্ন স্প্যামিং লিঙ্ক তৈরি করে ওয়েবসাইটের ক্ষতি করবেন না।

১০। ছবিতে কীওয়ার্ড পূর্ন ক্যাপশন ব্যবহার করুন। অনেকে শুধু ফাইল নেমে কীওয়ার্ড ব্যবহার করে কিন্তু ক্যাপশনে কোন কীওয়ার্ড ব্যবহার করে না।

১১। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এখন এসইও এর একটি অংশ। সুতরাং সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং দিকে নজর দিন।

১২। ওয়েবসাইটে কাস্টমারের এক্টিভিটির সুযোগ রাখুন। যেমনঃ রিভিউ রেটিং, কমেন্ট, শেয়ারিং ফাংশন ইত্যাদি।

১৩। ছবিতে ALT টেক্সট ব্যবহার করুন। ALT টেক্সতে অবশ্যই কীওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

১৪। আর্টিকেল এর মধ্যে আর্টিকেল সম্পর্কিত ভিডিও যুক্ত করার চেষ্টা করুন।

১৫। সবচেয়ে অকার্যকর কনটেন্টটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ থেকে ডিলিট করুন।